Logo

মৌলভীবাজারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

রিপন মিয়া, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
মৌলভীবাজারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে মানবসম্পদ ধ্বংস করার চক্রান্তে মেতে উঠেছে ক্ষমতাসীন সরকার। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস বলেন, ষড়যন্ত্রের নীলনকশা বাস্তবায়নে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে না। করোনার কারণে নয় বরং জাতির ভবিষ্যৎ ধ্বংসের জন্যই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের সবকিছু স্বাভাবিকভাবে চললেও শুধুমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে জাতিকে মেধাহীন করার চক্রান্ত চলছে। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, হাটবাজার, কলকারখানা, গণপরিবহন ও বিনোদন কেন্দ্রসহ সবকিছু খোলা থাকলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ কেন? তিনি বলেন পীর সাহেব চরমোনাই ঘোষিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে আজ ২রা সেপ্টেম্বর সারাদেশে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

আজ ০২রা সেপ্টেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার , বেলা ১২টায় মৌলভীবাজার জেলা শহরের প্রেসক্লাব চত্বরে সবধরণের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মৌলভীবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন এর জেলা সহসভাপতি মাওলানা মোস্তফা কামাল। জেলা সেক্রেটারি, মাওলানা জহিরুল ইসলাম। জেলা -প্রচার ও দাওয়া সম্পাদক,হাফিজ মাওলানা সোলাইমান আহমদ। জেলা মহিলা ও পরিবার কল্যাণ সম্পাদক,মাওলানা শরিফুল ইসলাম। ইসলামী যুব আন্দোলন জেলা সভাপতি,মাওলানা মুজাহিদুল ইসলাম।ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন জেলা সভাপতি,মুহাম্মদ ইসহাক সহ প্রমূখ।

এসময় বক্তারা বলেন, বিশ্বের যে সকল দেশে করোনা মহামারি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে সে দেশগুলোতেও ইতোমধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়েছে। এমনকি পার্শ¦বর্তী দেশ ভারতের অধিকাংশ জায়গায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়েছে। আমাদের দেশেও বিশেষজ্ঞগণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পরামর্শ দিয়ে আসছে। কিন্তু সরকার সেদিকে কোন কর্ণপাত করছে না। তিনি বলেন, দেশের অভিভাবকগণও আমাদের কাছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধে তাদের উদ্বেগের কথা জানিয়ে আসছে। আমরাও শান্তিপূর্ণভাবে সরকারের কাছে বারবার দাবি জানিয়ে আসছি। এখন দেশের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আমরা রাজপথে নেমে এসেছি। অবিলম্বে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে না দিলে পীর সাহেব চরমোনাই আহবানে পর্যায়ক্রমে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে ‘ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান স্থাপনে সরকারের অনুমতি প্রয়োজন’ মর্মে উত্থাপিত প্রস্তাবে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এতে নতুন মসজিদ-মাদরাসা প্রতিষ্ঠার পথ চরমভাবে সংকুচিত হবে। এটা ইসলামের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। দেশকে ইসলামশূণ্য করার অংশ হিসেবেই এধরণের আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তিনি সরকারকে হুশিয়ার করে বলেন, এদেশ আস্তিকদের দেশ। এদেশকে নাস্তিকদের হাতে ছেড়ে দেয়া হবে না।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সহযোগী সংগঠনের থানা, ইউনিয়ন শাখার নেতৃবৃন্দ।


More News Of This Category
Theme Created By Tarunkantho.Com