Logo

সাটুরিয়ার বরাইদ ইউপি নির্বাচনী প্রচারণায় গ্রামে গ্রামে ছুটছে নৌকা প্রত্যাশী আপেল

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি:
প্রকাশ: রবিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২১
বরাইদ ইউপি নির্বাচনী প্রচারণায়

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে জমজমাট প্রচার-প্রচারণা। তারই অংশ হিসেবে সাটুরিয়া উপজেলার ১নং বরাইদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড় ঝাপ চোখে পরার মত। নৌকা প্রতীক প্রত্যাশি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে অংশ নিচ্ছেন আপেল মাহমুদ চৌধুরী।

ইতিমধ্যে সভা সমাবেশ, সামাজিক, রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সেবামূলক কর্মকান্ডের মাধ্যমে বরাইদ ইউনিয়নবাসীকে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তার প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি জানান দিয়েছে।

বরাইদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মরহুম জাহাঙ্গী আলম চৌধুরীর ছেলে গোপালপুর গ্রামের কৃতি সন্তান। তিনি বরাইদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক সভাপতি ও সাটুরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক এবং সরকারী ভি এম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। গোপালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের বার বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি বরাইদ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করে বেড়াচ্ছেন ও বর্তমান বাংলাদেশ সরকরের সফল স্বাস্থ্যমন্ত্রী আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন ও আওয়ামীলীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সকল শ্রেনী মানুষের মাঝে তুলে ধরছেন।

এছাড়া জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতিতে শেখ হাসিনার স্বপ্ন গ্রামকে শহরে পরিণত করতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একজন নিরলস প্রার্থী হিসেবে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের মনোয়ন প্রত্যাশায় প্রতিনিয়ত উঠান বৈঠক মতবিনিময় সভা, গণসংযোগ ও বিভিন্ন ধরনের শোডাউন চালিয়ে যাচ্ছেন।

অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ, মসজিদ, মন্দির ক্লাবসহ বিভিন্ন সামাজিক, অনুষ্ঠানে অনুদান দিচ্ছে।

এ বিষয়ে তিনি জানান, আমি প্রথমত আওয়ামী পরিবারের একজন সন্তান। বঙ্গ বন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমার আদর্শ।

রাজনীতি আমার নেশাপেশা। আমি দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে দলের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আমি বরাইদ ইউনিয়নের মানুষের পাশে থেকে সেবা করতে চাই। কারণ এই ইউনিয়নে আমার দাদা মরহুম কলিম উদ্দিন চেয়ারম্যান দীর্ঘ ২৭ বছর চেয়ারম্যান থেকে মানুষের সেবা করেছেন। তিনি তার নিজ অর্থায়নে ইউনিয়ন পরিষদ এর জন্য ভূমি ক্রয় করে প্রথম ভবন স্থাপন করেন পাতিলাপাড়া গ্রামে।

তিনি আরো জানান, বিগত জামাত- বিএনপি ধ্বংস তান্ডব ও নাশকতা প্রতিহত করার নিমিত্তে জনবল নিয়ে মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে প্রতিটি মিটিং-মিছিলে অংশ গ্রহন করেছি।

১৯৯৬ সালে বিএনপি বিরোধী বৈঠা মিছিল আন্দোলন সংগ্রামে অংশ গ্রহন করেছি। দলীয় মনোনয়ন পেলে প্রত্যেকটি নেতাকর্মী ও সমাজের সাধারণ মানুষদের সাথে নিয়ে আমি বরাইদ ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ইউনিয়নে রূপান্তর করবো, মাদক, বাল্য বিবাহ রোধ করবো। জনপ্রতিনিধি না হয়েও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আমি মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি।

সব শেষে তিনি সকলের সহযোগিতা এবং দোয়া চেয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন।


More News Of This Category
Theme Created By Tarunkantho.Com