Logo

বিশ্ব ক্রিকেট ইতিহাসে বিশ্বকাপে ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের প্রথম জয়

আঃ আলীম, ষ্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১

কিছু কিছু জয় বিশ্বকাপ জেতার চেয়েও অনেক বেশী আনন্দের হয়। আর যদি সেটা হয়ে যায় রেকর্ড তাহলে তো ১০টা বিশ্বকাপ জেতার সমান আনন্দ হয়ে দেখা দেয়। ক্রিকেট দুনিয়ার সবচেয়ে উত্তেজনা পুর্ন ম্যাচ হয় যখন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তান খেলে।বিশ্বের সকল ক্রিকেট ভক্ত দর্শক ও সমর্থকেরা দুটি দলে ভাগ হয়ে যায়। যেমন সংখ্যক দর্শক ভারতের ঠিক তেমন সংখ্যক দর্শক পাকিস্তানের ও তাই এই দুই দলের ম্যাচ মানে সবচেয়ে আকর্ষনীয় হবে এটাই স্বাভাবিক।

ঠিক এমনই এক জয় পেয়ে বিশ্বকাপ জেতার আনন্দকে ও হার মানিয়ে দিয়েছে পাকিস্তানের দর্শক সমর্থক ও সকল ক্রিকেটারদেরকে। বিশ্বকাপের সব ফরম্যাটেই- হোক সে ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টি, কখনোই ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তান জিততে পারেনি। এবারই প্রথম জয় পেল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দল পাকিস্তান। আজ রবিবার দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে সুপার টুয়েলভের ম্যাচে ক্রিকেটবিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষণীয় এই মহারণে ভারতকে ১০ উইকেটে হারালো বাবর আজমের দল।

প্রথমে ব্যাট করতে নামা ভারতের দেওয়া ১৫২ রানের লক্ষ্যে কোনো উইকেট না হারিয়েই রেকর্ড জয় গড়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। মোহাম্মদ রিজওয়ান ৫৫ বলে ৭৯ ও অধিনায়ক বাবর আজম ৫২ বলে ৬৮ রানে অপরাজিত থেকেই জয় নিশ্চিত করেন দুই ওপেনার। আর তাতেই রচিত হয় টি-২০ তে ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় জয়ের ও বিশ্বকাপে প্রথম জয়ের ইতিহাস। অবাক করা বিষয় হলো ১৭ দশমিক ৫ ওভার বোলিং করে ও পাকিস্তানের কোনো উইকেট ফেলতে পারেনি ভারতীয় বোলাররা।

এর আগে, টসে হেরে আগে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫১ রান সংগ্রহ করে টিম ইন্ডিয়া। ভারতের এই সংগ্রহে বড় অবদান অধিনায়ক বিরাট কোহলির। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৪৯ বলে ৫৭ রানের ইনিংস খেলেন ভারতীয় ক্যাপ্টেন। ঋষভ পন্থের ব্যাট থেকে আসে ৩০ বলে ৩৭ রান। এদিন ব্যাট হাতে ভারতের শুরুটা মোটেও ভালো ছিল না। পেসার শাহীন আফ্রিদির তোপে মাত্র ৬ রানেই রোহিত শর্মা (০) ও লুকেশ রাহুলকে (৩) হারায় ভারত।

দলীয় ৩১ রানে ফিরে যান ১১ রান করা সূর্যকুমার যাদবও। সেখান থেকে ৫৩ রানের জুটি গড়ে ভারতকে টেনে তুলেন কোহলি ও পন্থ। পন্থের বিদায়ের পর রবিন্দ্র জাদেজাকে নিয়ে ৪১ রানের জুটি গড়েন কোহলি। জাদেজা ১৩ রানে সাজঘরে ফিরেন। বিরাট কোহলির উইকেটটিও নেন শাহীন আফ্রিদি। ৩১ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন শাহীন। ৪৪ রান দিয়ে দুই উইকেট নিয়েছেন হাসান আলী। ম্যাচসেরা হয়েছে শাহীন আফ্রিদি।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ে এর আগে কখনোই জিততে পারেনি পাকিস্তান। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তান মহারণের ইতিহাসের চাকা অবশেষে মরুর শহরে এসে ঘুরল। তাও আবার অনন্য এক রেকর্ডের মধ্য দিয়ে জয় তাই বিশ্বকাপ জেতার সমান আনন্দ পেয়ে গেছেন বলে জানিয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক।


More News Of This Category
Theme Created By Tarunkantho.Com