Logo
শিরোনাম :
ধামরাইয়ে বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল টাঙ্গাইল-৬ আসনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ব্যারিস্টার রাকিবের সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় সিংগাইরে ভাতা বঞ্চিত শারীরিক প্রতিবন্ধী  রাসেল, কাঠের লাঠিই ভরসা  ভোলায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালিত আমেনা নূর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ২ বেগমগঞ্জে অবৈধ বালুবাহী ট্রাক- পিকআপ মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১,আহত-১ বঙ্গবন্ধু পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতির মৃত্যুতে নোবিপ্রবি শাখার শোক খাদ্যের দাম বাড়তি, বন্ধ বেশিরভাগ পোল্ট্রি-খামার নিষেধাজ্ঞার জমিতে ‘অবৈধ কর্মকাণ্ড’




সিরাজগঞ্জে প্রধান শিক্ষক নেই ১১৭টি বিদ্যালয়, শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত

তরুণকণ্ঠ :
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২
প্রধান শিক্ষক বিহীন

সেলিম রেজা, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে ৮৮ ও উল্লাপাড়ায় ৭৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শুন্য রয়েছে। এভাবে দু’টি উপজেলায় দীর্ঘ সময় ধরে প্রধান শিক্ষকের পদ শুন্য থাকায় সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়গুলো আজ ভারপ্রাপ্তদের ভারে ভারাক্রান্ত হয়ে পড়েছে। ফলে শিক্ষা কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। তবে শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিত করতে অতি দ্রুত এ সকল বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণ করা দরকার বলে মনে করছেন শিক্ষক ও অভিভাবক মহল। তারা এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

সংশিষ্ট রায়গঞ্জ ও উল্লাপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সুত্রে জানাযায়,রায়গঞ্জ উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে মোট ১৮৫টি। এরমধ্যে ৮৮টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। অপরদিকে উল্লাপাড়া উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে ২৭৮ টি। এরমধ্যে ৭৯টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। কিন্তু এ শুন্যতায় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হলেও সংশ্লিষ্ট শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তারা বলছেন ভিন্ন কথা। তারা বলছেন, প্রধান শিক্ষক সঙ্কট থাকায় এ সকল বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের শুন্য পদ পুরণ করা সম্ভব হচ্ছেনা। তবে যে সকল বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে সে সকল বিদ্যালয়ের তালিকা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো হয়েছে।

এদিকে প্রধান শিক্ষক শুন্য সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়গুলোর সহকারী শিক্ষকরা বলছেন,প্রধান শিক্ষক না থাকার কারণে তাদের উপর বাড়তি চাপ পড়েছে,এতে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি প্রশাসনিক কার্যক্রমেও বিঘ্ন ঘটছে। অন্যদিকে সহকারী শিক্ষকদের অভিযোগ,একদিকে প্রধান শিক্ষক নেই,আরেকদিকে যারা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তারা দাফতরিক কাজে প্রায়ই উপজেলা শিক্ষা অফিসে ঘোরাঘুরি করেন,এতে উভয় শিক্ষক সঙ্কটের ফলে নির্ধারিত পাঠদান ব্যাহত হয়। এমনকি শিক্ষক সঙ্কটের কারণে একই শিক্ষককে একাধিক ক্লাসও নিতে হচ্ছে। এর পরও যাতে শিক্ষার্থীরা ঝড়ে না পড়ে সে বিষয়টি মাথায় রেখে সহকারী শিক্ষকরা এ বাড়তি চাপ নিচ্ছেন। অপরদিকে আবার অনেক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দফতরি কাম নৈশ প্রহরীর পদটি শুন্য থাকায় শিক্ষকদের সহায়তার কাজগুলোও করতে হচ্ছে সহকারী শিক্ষকদের।

রায়গঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আপেল মাহমুদ ও উল্লাপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছানোয়ার হোসেন জানান,যে সকল বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নেই, সে সকল বিদ্যালয়ের তালিকা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো হয়েছে।


আরো পড়ুন




Theme Created By Tarunkantho.Com