Logo
শিরোনাম :
বান্দরবানে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন মাননীয় মন্ত্রী ই-পাসপোর্ট পেতে বিড়ম্বনার শিকার সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসীরা সিংগাইরে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগ বানিজ্য লেনদেনে অভিযোগ বাঘায় তিন দিনেও নিখোঁজ শিশুর সন্ধান মেলেনি বদলগাছীতে মোটরসাইকেল-ভুটভুটির সংঘর্ষে একজনের মর্মান্তিক মৃত্যু বাঘার সিফাত জাতীয় পর্যায়ে তৃতীয় অনাহারী স্ত্রী সন্তানরা দিন মজুর রেজাউল করিমের হত্যার বিচার চায়। শ্রমিকের ন্যায্য হিস্যা বুঝিয়ে দিন; ইউএনও দীপন দেবনাথ ঠাকুরগাঁওয়ে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন করবেন মোয়াজ্জেম হোসেন খান মজলিশ




খাদ্যের দাম বাড়তি, বন্ধ বেশিরভাগ পোল্ট্রি-খামার

আজকের তরুণকণ্ঠ :
প্রকাশকাল : বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২২

সেলিম রেজা:
পোল্ট্রি খাদ্যের দাম বেড়েছে। মুরগির বিভিন্ন রোগের ওষুধের দামও বেড়েছে। ডিমের দাম বাড়লে কয়েকদিন পরে তা আবার কমে যায়। কিন্তু পোল্ট্রি খাদ্য আর ওষুধের দাম বাড়লে আর কমে না।
অস্থিতিশীল বাজার ব্যবস্থা, পোল্ট্রি খাদ্য ও ওষুধের দাম বৃদ্ধির বিপরীতে উৎপাদিত মুরগি ও ডিমের দাম কম হওয়ায় ধস নেমেছে সিরাজগঞ্জের পোল্ট্রি শিল্পে। ইতোমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে জেলার বেশিরভাগ খামার। বেকার হয়ে পড়েছে এই শিল্পের কয়েক হাজার শ্রমিক।
সম্ভাবনাময় এই শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে সরকার আরও আন্তরিকভাবে এগিয়ে আসবেন এমনটি আশা করছেন এ শিল্প সংশ্লিষ্টরা।
পোল্ট্রি শিল্প কয়েক বছর আগেও ছিল লাভজনক একটি শিল্প। স্বল্পপুঁজির এই শিল্পে উৎসাহী হয়ে ওঠে শিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত বেকার যুবকরা। সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে গড়ে ওঠে ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় সাড়ে চার হাজার পোল্ট্রি খামার। কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয় বেকারদের। কিন্তু বর্তমান চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। সরকারি নজরদারির অভাবে গত কয়েক বছরে এ শিল্পের বাজার হয়ে পড়েছে অস্থিতিশীল। পোল্ট্রি খাদ্য, মুরগির বাচ্চা ও ওষুধের দাম বেড়েছে দফায় দফায়। কিন্তু সে অনুপাতে উৎপাদিত ডিম ও মুরগির দাম না বাড়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে প্রান্তিক খামারিদের। অধিকাংশ খামারিরা লোকসান দিয়ে তাদের পুঁজি হারিয়ে ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। ফলে খামার বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন অনেকেই।
চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে প্রতি বস্তা মুরগির খাদ্যের দাম বেড়েছে মানভেদে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২০০ টাকা। বর্তমানে ৫০ কেজি ওজনের এক বস্তা ব্রয়লার ‍মুরগির খাবার ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার ২০০, সোনালি মুরগির খাবার ২ হাজার ৬০০ থেকে ২ হাজার ৮০০ ও লেয়ার মুরগির খাবার ২ হাজার ৫০০ থেকে ২ হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
অন্যদিকে উৎপাদিত ডিম বিক্রি হচ্ছে ৯ টাকায়। আর ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৪০ টাকা কেজি ও সোনালি মুরগি ২৪০ থেকে ২৬০ টাকায়।
পোল্ট্রি খাদ্যের দাম একবার বাড়লে তা আর কমছে না, কিন্তু মুরগি বা ডিমের দাম এক সপ্তাহ বাড়লে কমছে পরের সপ্তাহেই। এর উপর যোগ হয়েছে ‘ফাউল টাইফয়েড’ নামক এক নতুন রোগ। এই রোগে আক্রান্ত হলে একদিনেই মারা যাচ্ছে খামারের শত শত মুরগি।
বর্তমানে সিরাজগঞ্জ জেলায় ২ হাজার ৬৫৭টি নিবন্ধিত খামারে রয়েছে প্রায় ৪ লাখ ৯৪ হাজার ২৫৯ মুরগি। অনিবন্ধিত খামার ও খামারে থাকা মুরগির সংখ্যা এর প্রায় দ্বিগুণ।
জেলাটির একটি পোল্ট্রি খামারে কাজ করেন আরিফ। তিনি বলেন,বেকার ছিলাম। এরপর খামারে কর্মস্থান হয়েছে। এই খামারের বেতন দিয়ে আমার সংসার চলে৷ সব কিছুর দাম বেড়েছে। এতে করে খামারের মালিকরা পড়েছেন মহাবিপদে। আমাদের বেতন দিতে হয়, তাদেরও চলতে হয়। তবে এই ভাবে চললে খামারিরা ব্যবসা বন্ধ করে দেবেন। এতে আমরা বেকার হয়ে পরব।
পোল্ট্রি খামারি হেলাল বলেন,পোল্ট্রি খাদ্যের দাম বেড়েছে, মুরগির বিভিন্ন রোগের ওষুধের দামও বেড়েছে। ডিমের দাম বাড়লে কয়েকদিন পরে তা আবার কমে যায়। কিন্তু পোল্ট্রি খাদ্য আর ওষুধের দাম বাড়লে আর কমে না। এতে খামারিরা লোকসানের মুখে আছে। ‍মুরগির নতুন একটা রোগ হয়েছে “ফাউল টাইফয়েড”। এর চিকিৎসা ব্যয়বহুল।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, মুরগির এ নতুন রোগ নিয়ে জেলা প্রাণিসম্পদকে বার বার বলার পরেও কোনো পদক্ষেপ নেয় না।
সিরাজগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. গৌরাঙ্গ কুমার তালুকদার বলেন,আমরা মাঝে মাঝে টিকা দিই সুলভ মূল্যে। পোল্ট্রি খাদ্যের দাম বৃদ্ধির ফলে খামারিরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। খামারিদের সরকারিভাবে প্রণোদনা ও বাজার তদারকির উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।


আরো পড়ুন

চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে আমাদের সাথে থাকুন:




ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে সাথে থাকুন:
Theme Created By Tarunkantho.Com