শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
অনলাইন নিউজ পোর্টাল “আজকের তরুণকণ্ঠে” জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ পর্যায়ে সাংবাদিক/প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা  ইমেইলে (newstarunkantho@gmail.com)জীবন বৃত্তান্তসহ পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও জাতীয় পরিচয় পত্র সংযুক্ত করে পাঠাতে পারেন।

নাগরপুরে রাতে আধারে বাড়ীঘর ভাঙচুর করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ

তরুণকণ্ঠ ডেস্ক
প্রকাশ : সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ৫:৩৫ অপরাহ্ন
বাড়ীঘর ভাঙচুর করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ

এ.বি.খান বাবু, বিশেষ প্রতিবেদক :

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে স্থানীয় প্রভাবশালী আওয়ামী লীগের নেতাদের নেতৃত্বে গভীর রাতে এক্সকাভেটর (ভেকু) মেশিন দিয়ে একাধিক বাড়ীঘর ভাঙচুর, গাছপালা উপড়ে ও মাটি কেটে ওই জমির ওপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণের করার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে ঢাকা-টাংগাইল আঞ্চলিক মহাসড়ক পাশে টাংগাইলে নাগরপুর উপজেলার পাকুটিয়া ইউনিয়নের রাথুরা এলাকার হাসেন সরকারের বাড়ী হতে রাথুরা কওমী মাদ্রাসা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে ১ কিলোমিটার রাস্তা নিমার্ণ করা হয়েছে। অপর দিকে সরকার ও
ভুক্তভোগী পরিবারদের প্রায় অর্থকোটি টাকার মালামাল ক্ষতি হয়েছে।

গতকাল রবিবার ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর পক্ষ থেকে নাগরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। এতে রাস্তার কাজের দায়িত্ব প্রাপ্তরা ছিলেন, বাবুল হোসেন সাগর, দুলাল,সুমন সানাইদার,হারেজ খলিফা,আলিয়ার,হাসান সানাইদার ও রাস্তার সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম।

ভুক্তভোগী মো. জামাল সানাইদার বলেন,আমরা কেউ বাড়ীতে ছিলাম না। সন্ত্রাসী রাজত্ব কায়েম করছে। শুক্রবার গভীর রাতে আমার দু’তলা বিল্ডিং অংশিক,একটি গ্যারেজঘর, একটি টেউবয়েল,১০/১৫টি অটোরিকশা ও জমির ওপর দিয়ে ১০ ফুট প্রস্থ করে রাস্তা নির্মাণ করে নিয়েছে। এতে প্রায় আমার প্রায় ১০ লক্ষ টাকার মালামাল ক্ষতি হয়েছে।

আরেক ভুক্তভোগী আব্দুল কাদের মো. শাকিল বলেন, এ সময় ২০-২৫ জন লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়েছেন। ওই সব অস্ত্রধারী লোকজন আমাদের বলেন রাস্তার কাজে বাধা দিলে ওই জায়গার ওপর কবর দেওয়া হবে। এতে আমরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়ি।

একাধিক ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা বলেন, আমরা তো এই দেশের মানুষ। সরকার যুদি আমাদের রাস্তা করে দেয় তা হলে এলাকাবাসী এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করবে। সরকার আমাদের নোটিশ দিলে আমরা স্ব-ইচ্ছায় রাস্তার জন্য জমি ছেড়ে দিতাম। আমাদের ওপর কেন এই অত্যাচার ও অবিচার? আমরা কোথায় বিচার পাব?

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আবু বকর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,এ রাস্তায় কোন প্রকল্প দেওয়ার হয়নি। আমাকে কেউ অবাহত করেনি। এ ভাবে রাতের আধারে ক্ষতি করে রাস্তা নিমার্ণ করা ঠিক হয়নি।

পাকুটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সিদ্দিকুর রহমান জানান, এ রাস্তা বিষয়ে আমি আবগত নয়। এ ভাবে কাজ করাটা ঠিক হয়নি। এ খানে কোন সরকারী বরাদ্দ নেই। আমার ইউপি সদস্য খোকন জানিয়েছে প্রায় ৮০/৯০ টা সরকারী বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে ফেলেছে। অনেক বাড়ীঘর ভাঙচুর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্তকারী বাবুল হোসেন সাগরের মুঠোফোনের যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মন্ত্রী মহোদয়ের কোঠার কাজ করা হয়েছ।

এ বিষয় উপজেলা নিবাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)রেজা মো. গুলাম মাসুম প্রধান বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) কে পরিদর্শনে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


এ সম্পর্কিত

Theme Created By ThemesDealer.Com