রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৫২ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
অনলাইন নিউজ পোর্টাল “আজকের তরুণকণ্ঠে” জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ পর্যায়ে সাংবাদিক/প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা  ইমেইলে (newstarunkantho@gmail.com)জীবন বৃত্তান্তসহ পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও জাতীয় পরিচয় পত্র সংযুক্ত করে পাঠাতে পারেন।

ক্লুলেস হত্যার রহস্য উদঘাটন, মূলহোতা গ্রেফতার

তরুণকণ্ঠ ডেস্ক
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ৬:৩৭ অপরাহ্ন
ক্লুলেস হত্যার রহস্য উদঘাটন

আমিনুল ইসলাম, মানিকগঞ্জ:

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া থানার চাঞ্চল্যকর ও আলোচিত আঃ রউফ ক্লুলেস হত্যার রহস্য উদঘাটন ও ২৪ ঘন্টার মধ্যে মূলহোতা হেলেনা বেগমকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে সাটুরিয়া উপজেলার নয়াডাঙ্গী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাব-৪ মানিকগঞ্জ সিপিসি-৩ এর লে. কমান্ডার মো. আরিফ হোসেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃত আসামি হেলেনা বেগম ও ভিকটিম রোমান পাশাপাশি গ্রামের বাসিন্দা। প্রায় ৪ বছর পূর্বে হেলেনা বেগমের স্বামী শামসুল হক মারা গেলে সে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া থানাধীন নয়াডিঙ্গী এলাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকরী নেয় এবং ভিকটিম গাছবাড়ী এলাকার একটি মুদি দোকান করে জীবিকা নির্বাহ করতো। গ্রেফতারকৃত আসামী গার্মেন্টসে যাওয়া আসার মাঝে মুদি দোকানদার রোমানের দোকানে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার সুত্রধরে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে। একএক পর্যায়ে তারা পারস্পরিক অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। কিন্তু অনৈতিক পরকীয়া সম্পর্কের বিষয়টি জানাজানি হলে তাদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব ও মনোমালিন্যের তৈরী হয়। এরই জের ধরে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পূর্ব পরিকল্পনা মতে রোমানের পরিহিত কালো রঙের শীতবস্তু দিয়ে মুখ চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে আসামি হেলেনা। মৃত্যু নিশ্চিতের পরবর্তীতে কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে নিজ ঘরে এসে রাত্রিযাপন করতে থাকে। অতঃপর আজ ভোরে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে মৃতদেহটি দেখতে পেলে স্থানীয় পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে থেকে মৃতদেহ উদ্ধার এবং সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুতপূর্বক মৃতদেহ মর্গে প্রেরণ করে।

উক্ত ঘটনার রহস্য উদঘাটনে র‌্যাব-৪, সিপিসি-৩, মানিকগঞ্জ এর একটি আভিযানিক দল তথ্য-প্রযুক্তি ও ঘটনাস্থলে থাকা পারিপার্শ্বিক আলামত এবং তথ্যের ভিত্তিতে উক্ত ঘটনার রহস্য উদঘাটনপূর্বক ঘটনার সাথে জড়িত অভিযুক্ত হেলেনা বেগম (৪৫)’কে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া থানাধীন নয়াডিঙ্গী এলাকা হতে আটক করতে সক্ষম হয়। আটকের পর অভিযুক্ত হেলেনা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার দায় স্বীকার করে। উক্ত ঘটনায় সাটুরিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

লে.কমান্ডার মোহাম্মদ আরিফ হোসেন বলেন, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ নির্মূল ও মাদক বিরোধী অভিযানের পাশাপাশি খুন, চাঁদাবাজি, ডাকাতি ও অস্ত্রধারী সংঘবদ্ধ সক্রিয় সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যদের গ্রেফতারে RAB-4 জোরালো তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ সকালে আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর রোমান হত্যাকান্ডের পরিকল্পনাকারী মূলহোতা হেলেনাকে তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতারপূর্বক রহস্য উদঘাটন করা হয়।


এ সম্পর্কিত

Theme Created By ThemesDealer.Com